বরিশালে বাজার নিয়ন্ত্রণে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

পবিত্র রমজান উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাণিজ্য মন্ত্রনালয়ের নির্দেশ যথাযথভাবে বাস্তবায়নে বরিশালে বাজার মনিটরিং সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।  

এদিকে বাজার মনিটরিং সভার পাশাপাশি নিত্যপন্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখাসহ স্বাস্থ্য বিধি বাস্তবায়নে গতকাল ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেছে জেলা প্রশাসন। অভিযানে কাউকে জরিমানা করা না হলেও নিত্যপন্যের মূল্য নজরদারীসহ বিভিন্ন স্থানে শারীরিক দূরত্ব ও গণজমায়েত রোধে নানা পদক্ষেপ নেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।

জেলা প্রশাসনের সভা কক্ষে জেলা বাজার মনিটরিং কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক এসএস অজিয়র রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক হরিদাস শিকারী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুর রকিব, জেলা বাজার কর্মকর্তা আবু সালেহ মো. হাসান সরোয়ার এবং বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  

জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার সুব্রত কুমার বিশ্বাস জানান, বাজার মনিটরিং কমিটির সভায় ব্যবসায়ীদের স্বাস্থ্য বিধি যথাযথভাবে অনুসরন করে আগামী ১০ মে থেকে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত দোকানপাঠ খোলা রাখতে বলা হয়েছে। তবে প্রতিটি মার্কেট ও দোকানের সামনে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা ও জীবাণুুনাশক স্প্রে করা এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারসহ স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণে কঠোর নির্দেশনা দেয়া হয়।

ঈদ বাজারে কেনাকাটার সময়ক্ষণ (সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা) মাইকিং করার জন্য তথ্য অফিসকে নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক। বর্তমানে নিত্যপন্যসহ দ্রব্যমূল্যের বাজার সহনীয় থাকায় সন্তোষ প্রকাশ করে জেলা প্রশাসক এই অবস্থা ধরে রাখতে সকলকে আন্তরিকভাবে কাজ করার নির্দেশ দেন। এছাড়া কাঁচা বাজারসহ অন্যান্য বাজারে চলমান নিয়ম অব্যাহত থাকবে বলে সভায় নির্দেশনা দেন জেলা প্রশাসক।  

এদিকে বাজার মনিটরিং সভার পাশাপাশি নিত্যপন্যের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখা সহ স্বাস্থ্য বিধি বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজমূল হুদার ভ্রাম্যমাণ আদালত নগরীর নবগ্রাম রোড, করিম কুটির, চৌমাথা ও নথুল্লাবাদ বিভিন্ন এলাকা নজরদারী করেন।

 নগরীর চৌমাথা এলাকায় সোনালী ব্যাংকের কয়েক শ’ গ্রাহক শারীরিক দূরত্ব না মেনে বয়স্ক ও বিধবা ভাতার টাকা উত্তোলনের জন্য লাইনে দাঁড়ালে তাদের স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে উদ্বুদ্ধ করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।  

এছাড়াও বিভিন্ন স্থানে ঘুরে করোনা সংক্রমণ এড়াতে হ্যান্ড মাইকে নানা সচেতনতামূলক প্রচারণা চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। র‌্যাবের সদস্যরা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় সহযোগীতা করেন।  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *